1. successrony@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailykhabor24.com : Daily Khabor : Daily Khabor
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন

‘মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে’

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

জন্ম হোক যথাতথা কর্ম হোক ভালো- প্রচলিত এই প্রবাদটির সঙ্গে বাস্তব অনেক ক্ষেত্রেরই অমিল খুঁজে পাওয়া ভার। জন্ম নয়, কর্মেই মানুষের পরিচিতি প্রকাশ পায়। ‘মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে’- বিখ্যাত শিল্পী ভূপেন হাজারিকার কণ্ঠে গীত এই গানের পঙ্ক্তি যেন চিরন্তন। ‘প্রধানমন্ত্রীর মন জয় করলেন সেই ভিক্ষুক’- শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার ভিক্ষুক নাজিম উদ্দীনের মহত্তে¡র যে চিত্র উঠে এসেছে, তা শুধু সাধুবাদযোগ্যই নয়, অনুসরণযোগ্যও বটে। নিজের জীর্ণ ঘরটি মেরামতের জন্য তিলে তিলে জমানো সঞ্চয় নাজিম উদ্দীন করোনাদুর্গতদের জন্য স্থানীয় করোনা তহবিলে দান করেন। তার এই মহত্ত¡ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও মন কেড়ে নিয়েছে। অশীতিপর এই বৃদ্ধের অনুভূতি আবারও প্রমাণ করল, সত্যিকার অর্থেই মানুষ মানুষের জন্য। খবরে প্রকাশ, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে ২৫ লাখ টাকার জমি ও ঘর প্রদান করা হচ্ছে তাকে। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তার ভিটেমাটি পাকা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে গত বুধবার তাকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয় সংবর্ধনাও। মানবজাতি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে।

আমরা জানি, মানুষজন এখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণে শুধু তটস্থই নয়, বিশ্বের অসংখ্য স্বেচ্ছাবন্দি মানুষের উল্লেখযোগ্য একটি অংশ পড়েছে জীবিকা সংকটেও। এরই মাঝে জীবনের তরে জীবন বিলিয়ে দিতে অসংখ্যজন নানাভাবে বাড়িয়েছেন সহযোগিতা-সহায়তার হাতও। বিপন্ন নাজিম উদ্দীন এদেরই একজন। দিন এনে দিন খাওয়া একজন মানুষ তার কর্মের মধ্য দিয়ে শুধু অনন্য দৃষ্টান্তই স্থাপন করেননি, অনুসরণীয় পথও বাতলে দিয়েছেন।

আমাদের সমাজে এমন মানুষের সংখ্যা অগণ্য, যাদের একটু সহানুভূতি-সহায়তা অনেক বিপন্নজনের জীবন বাঁচাতে পারে। আবার একই সঙ্গে দেখা যায় এর বিপরীত চিত্রও। যে কোনো দুঃসময়ে মানুষের ভেতরের ভালো দিকটি যে রকম বের হয়ে আসে, খারাপ দিকটিও একইভাবে বের হয়ে আসে। করোনা দুরারোগ্যের এই সময়টিতে সংবাদমাধ্যমে এমন খবরও উঠে আসছে। ত্রাণ ও ওএমএসের চাল চুরি কিংবা আত্মসাতের ঘটনা এরই খন্ডিত দৃষ্টান্ত। তবে শুধু খারাপ ঘটনাগুলোর কথা বলা হলে মানুষের মনুষ্যত্ব নিয়ে ভুল ধারণা পুষ্ট হতে পারে। এ রকম সময়ে অসংখ্য মানুষ একে অপরকে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে আসছেন, এটিও সত্য। নাজিম উদ্দীনের মতো হতদরিদ্র একজন মানুষ সমাজের সামর্থ্যবানদের মানবিক মূল্যবোধ জাগিয়ে তোলার ক্ষেত্রে অনন্য অনুপ্রেণাকারী হিসেবে পরিচিত হয়ে থাকবেন।

দুর্যোগকালে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সাধারণ মানুষের মনোবল। করোনাভাইরাসের দুর্যোগ সামলে নেওয়ার বিষয়টি যদি সত্যি যুদ্ধ হয়ে থাকে, তাহলে এবারও আমাদের মনোবল শক্ত রাখতে হবে। দেশের মানবসম্পদ যদি সাহস নিয়ে এগিয়ে আসে, তাহলে নিশ্চয়ই আমরা এমন দুর্যোগ অতিক্রম করতে পারব। মানুষ যখন দিন দিন আত্মকেন্দ্রিক ও স্বার্থপর হয়ে যাচ্ছে, নিজেকে নিয়েই অনেকে ব্যস্ত, অন্যের দুঃখ-কষ্ট, বিপদ-আপদ যাদের স্পর্শ করে না, তাদের চোখ খুলে দিলেন নাজিম উদ্দীন। আমরা নাজিম উদ্দীনকে অভিবাদন জানাই। তিনি ফের স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন- মানুষ মানুষের জন্যে। আমাদের অনুভূতি যেন ভোঁতা হয়ে না যায়। বাংলা ভাষার শক্তিমান কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের ‘মানুষ বড় কাঁদছে, তুমি মানুষ হয়ে পাশে দাঁড়াও’- এই কাব্য পঙ্ক্তিও এমন দুঃসময়ে বড় অনুপ্রেরণাদায়ক।

এ জাতীয় আরো খবর