1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : rubel :
  4. [email protected] : shaker :
  5. [email protected] : shamim :
মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১২:২৪ অপরাহ্ন

পকেট কাটছে ইউনিলিভার

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

 

ডেইলি খবর ডেস্ক: দেশের জনগনের পকেট কাটছে ইউনিলিভার। দেশের বাজারগুলোতে কিংবা শপিংমলে ইউরিলিভারের প্রতিটি পণ্যেে দাম ব্রাপক বাড়িয়েছে। পঞ্চান্ন টাকার বড় লাক্স সাবান বক্রিি করা হচ্ছে ৭৫ টাকায়। ৯০ টাকার হুইল পাওডার ১৪২ টাকা। ২১০ টাকার র্সাফ এক্সএলরে দাম ২৮০ টাকা। ১০ টাকার মনিি সাবান ১৫ টাকা। এভাবে সব পণ্য ইউনলিভিার কোম্পানি বশেি দামে বক্রিি করছ।ে ভোক্তা অধদিপ্তররে কাছওে এই অভযিোগ এসছে।ে বাধ্য হয়ে বুধবার (৭ সপ্টেম্বের) ইউনলিভিারকে তলব করা হয়ছে।েভোক্তা অধদিপ্তররে উপ-পরচিালক আফরোজা রহমান এক চঠিতিে সাবান, ডটিারজন্টে, পস্টে, লকিুইড ক্লনিারসহ বভিন্নি পণ্যরে মূল্য তালকিা নয়িে আসতে বলছেনে।
ডলার ও জ্বালানি তলেরে মূল্য বৃদ্ধরি অজুহাতে বভিন্নি কোম্পানি ইচ্ছামতো পণ্যরে দাম নর্ধিারণ করে ভোক্তাদরে পকটে কাটছ।ে দশেরে পাড়া মহাল্লা থকেে শুরু রাজধানীর কৃষমর্িাকটে, টাউনহল, কারওয়ান বাজার র্পযন্ত সব জায়গায় বক্রিি করা হচ্ছ।েবক্রিতোরা বলছনে, আমাদরে বলছনে কনে, ইউনলিভিার কোম্পানকিে বলনে, তারা তো ইচ্ছা মতো দাম নচ্ছি।েএ ব্যাপারে টাউনহল র্মাকটেরে নউি হক স্টোররে রাজন বলনে, কছিু দনিরে মধ্যে ইউনলিভিার সব পণ্যরে দাম বাড়য়িছে।ে আমরা কী করব? বশেি দামে কনিে বশেি দামইে বক্রিি করতে হব।ে
তনিি আরও বলনে, ‘আগে যে হইল সাবান ২৫ টাকা তা ৩০ টাকা হয়ে গছে।ে ৫৫ টাকার বড় লাক্স ৭৫ টাকা, ৩৫ টাকার ভমিবার ৪০ টাকা, ৯২ টাকার হুইল ১৪২ টাকা, ২১০ টাকার র্সাফএক্সএল ২৮০ টাকায় বক্রিি করা হচ্ছ।ে এভাবে সব পণ্যরে দাম বড়েে গছে।ে তা দখোর কউে নইে।’অপরদকিে কারওয়ান বাজাররে আলি স্টোররে আলি হোসনেও বলনে, ‘বভিন্নি পণ্যরে দাম বৃদ্ধি হুহু করে বাড়ছ।ে আটা ময়দার মতো ইউনলিভিাররে সব পণ্যরে দাম বড়েে গছে।ে’এর কারণ জানতে চাইলে তনিি আরও বলনে, ‘আমাদরে কি করার আছ।ে কছিু বলতে হলে কোম্পানকিে বলনে। শুধু এই দুই বক্রিতো নয়, বাজাররে অন্য বক্রিতোরাও বলছনে, সরকারকে এটা দখো দরকার। এভাবে ভোক্তারা ঠকব,ে তা হতে পারে না।’এ ব্যাপারে জাতীয় ভোক্তা অধকিার সংরক্ষণ অধদিপ্তররে মহাপরচিালক (ডজি)ি এ এইচ এম সফকিুজ্জামান বলনে, বুধবার বহুজাতকি কোম্পানি ইউনলিভিারসহ বড় বড় প্রতষ্ঠিানকে ডাকা জানতে চাওয়া হবে ‘কনে সাবান, ডটিারজন্টে, পস্টেরে দাম এত বাড়ল। তাদরে জজ্ঞিাসা করা হব,ে এটা কতটুকু যৌক্তকি তা নয়িে জজ্ঞিসে করা হব।ে তাদরে চঠিি দয়িে দুই বছর, এক বছর, ছয় মাস ও আজকরে পণ্য তালকিা চাওয়া হয়ছে।ে দখো হবে দামরে র্পাথক্য কত হয়ছে।ে এই র্পাথক্য যৌক্তকি কি না তা খতয়িে দখো হব।ে’কউে অভযিোগ করুক বা না করুক একজন ভোক্তা হসিবেে আমারও দায়ত্বি আছে বাজারে কী হচ্ছে তা দখোর। ভোক্তার পকটে যাতে কম কাটা হয় সইে ব্যবস্থা করা হচ্ছ।ে ইউনলিভিার যা করছে এটা আগে কউে কখনো দখেনে।ি তাইতো ভোক্তাদরে পকটে থকেে টাকা চলে যাচ্ছ।ে তা দখো হব,ে যোগ করনে তনি।িএ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউনলিভিাররে পরচিালক (ব্রান্ড অ্যান্ড কমইিউনকিশেন) শামমিা আখতার বলনে, ডলাররে দাম বড়েছে।ে জ্বালানি তলেরে দাম বড়েছে।ে আর্ন্তজাতকিভাবে সব পণ্যরে দাম বড়েছে।ে আমাদরে কাঁচামাল এনে পণ্য তরৈি করতে হয়। তাই আমাদরে পণ্যরে দামও বৃদ্ধি করা হয়ছে,ে এটা অস্বীকার করার উপায় নইে।’
তনিি আরও বলনে, ‘আগে তো কখনো এত দাম বৃদ্ধি করা হয়ন।ি এটা আর্ন্তজাতকি প্রতষ্ঠিান। তাই টকিে থাকার জন্য ইউনলিভিার পণ্যরে দাম বৃদ্ধি করতে বাধ্য হয়ছে।ে প্রতযিোগতিা করইে বাজারে টকিে থাকতে হচ্ছ।ে সারাবশ্বিে আমাদরে পণ্য সবার পছন্দরে। তাই ভোক্তারাও কনিছ।ে শ্যাম্পু ব্যবহার না করলওে চল।ে তারপরও বলিাসী এই পণ্য সবাই ব্যবহার করছনে।’ দেশের জনগনের পকেট কাটছে ইউনিলিভার
ডেইলি খবর ডেস্ক: দেশের জনগনের পকেট কাটছে ইউনিলিভার। দেশের বাজারগুলোতে কিংবা শপিংমলে ইউরিলিভারের প্রতিটি পণ্যেে দাম ব্রাপক বাড়িয়েছে। পঞ্চান্ন টাকার বড় লাক্স সাবান বক্রিি করা হচ্ছে ৭৫ টাকায়। ৯০ টাকার হুইল পাওডার ১৪২ টাকা। ২১০ টাকার র্সাফ এক্সএলরে দাম ২৮০ টাকা। ১০ টাকার মনিি সাবান ১৫ টাকা। এভাবে সব পণ্য ইউনলিভিার কোম্পানি বশেি দামে বক্রিি করছ।ে ভোক্তা অধদিপ্তররে কাছওে এই অভযিোগ এসছে।ে বাধ্য হয়ে বুধবার (৭ সপ্টেম্বের) ইউনলিভিারকে তলব করা হয়ছে।েভোক্তা অধদিপ্তররে উপ-পরচিালক আফরোজা রহমান এক চঠিতিে সাবান, ডটিারজন্টে, পস্টে, লকিুইড ক্লনিারসহ বভিন্নি পণ্যরে মূল্য তালকিা নয়িে আসতে বলছেনে।
ডলার ও জ্বালানি তলেরে মূল্য বৃদ্ধরি অজুহাতে বভিন্নি কোম্পানি ইচ্ছামতো পণ্যরে দাম নর্ধিারণ করে ভোক্তাদরে পকটে কাটছ।ে দশেরে পাড়া মহাল্লা থকেে শুরু রাজধানীর কৃষমর্িাকটে, টাউনহল, কারওয়ান বাজার র্পযন্ত সব জায়গায় বক্রিি করা হচ্ছ।েবক্রিতোরা বলছনে, আমাদরে বলছনে কনে, ইউনলিভিার কোম্পানকিে বলনে, তারা তো ইচ্ছা মতো দাম নচ্ছি।েএ ব্যাপারে টাউনহল র্মাকটেরে নউি হক স্টোররে রাজন বলনে, কছিু দনিরে মধ্যে ইউনলিভিার সব পণ্যরে দাম বাড়য়িছে।ে আমরা কী করব? বশেি দামে কনিে বশেি দামইে বক্রিি করতে হব।ে
তনিি আরও বলনে, ‘আগে যে হইল সাবান ২৫ টাকা তা ৩০ টাকা হয়ে গছে।ে ৫৫ টাকার বড় লাক্স ৭৫ টাকা, ৩৫ টাকার ভমিবার ৪০ টাকা, ৯২ টাকার হুইল ১৪২ টাকা, ২১০ টাকার র্সাফএক্সএল ২৮০ টাকায় বক্রিি করা হচ্ছ।ে এভাবে সব পণ্যরে দাম বড়েে গছে।ে তা দখোর কউে নইে।’অপরদকিে কারওয়ান বাজাররে আলি স্টোররে আলি হোসনেও বলনে, ‘বভিন্নি পণ্যরে দাম বৃদ্ধি হুহু করে বাড়ছ।ে আটা ময়দার মতো ইউনলিভিাররে সব পণ্যরে দাম বড়েে গছে।ে’এর কারণ জানতে চাইলে তনিি আরও বলনে, ‘আমাদরে কি করার আছ।ে কছিু বলতে হলে কোম্পানকিে বলনে। শুধু এই দুই বক্রিতো নয়, বাজাররে অন্য বক্রিতোরাও বলছনে, সরকারকে এটা দখো দরকার। এভাবে ভোক্তারা ঠকব,ে তা হতে পারে না।’এ ব্যাপারে জাতীয় ভোক্তা অধকিার সংরক্ষণ অধদিপ্তররে মহাপরচিালক (ডজি)ি এ এইচ এম সফকিুজ্জামান বলনে, বুধবার বহুজাতকি কোম্পানি ইউনলিভিারসহ বড় বড় প্রতষ্ঠিানকে ডাকা জানতে চাওয়া হবে ‘কনে সাবান, ডটিারজন্টে, পস্টেরে দাম এত বাড়ল। তাদরে জজ্ঞিাসা করা হব,ে এটা কতটুকু যৌক্তকি তা নয়িে জজ্ঞিসে করা হব।ে তাদরে চঠিি দয়িে দুই বছর, এক বছর, ছয় মাস ও আজকরে পণ্য তালকিা চাওয়া হয়ছে।ে দখো হবে দামরে র্পাথক্য কত হয়ছে।ে এই র্পাথক্য যৌক্তকি কি না তা খতয়িে দখো হব।ে’কউে অভযিোগ করুক বা না করুক একজন ভোক্তা হসিবেে আমারও দায়ত্বি আছে বাজারে কী হচ্ছে তা দখোর। ভোক্তার পকটে যাতে কম কাটা হয় সইে ব্যবস্থা করা হচ্ছ।ে ইউনলিভিার যা করছে এটা আগে কউে কখনো দখেনে।ি তাইতো ভোক্তাদরে পকটে থকেে টাকা চলে যাচ্ছ।ে তা দখো হব,ে যোগ করনে তনি।িএ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউনলিভিাররে পরচিালক (ব্রান্ড অ্যান্ড কমইিউনকিশেন) শামমিা আখতার বলনে, ডলাররে দাম বড়েছে।ে জ্বালানি তলেরে দাম বড়েছে।ে আর্ন্তজাতকিভাবে সব পণ্যরে দাম বড়েছে।ে আমাদরে কাঁচামাল এনে পণ্য তরৈি করতে হয়। তাই আমাদরে পণ্যরে দামও বৃদ্ধি করা হয়ছে,ে এটা অস্বীকার করার উপায় নইে।’
তনিি আরও বলনে, ‘আগে তো কখনো এত দাম বৃদ্ধি করা হয়ন।ি এটা আর্ন্তজাতকি প্রতষ্ঠিান। তাই টকিে থাকার জন্য ইউনলিভিার পণ্যরে দাম বৃদ্ধি করতে বাধ্য হয়ছে।ে প্রতযিোগতিা করইে বাজারে টকিে থাকতে হচ্ছ।ে সারাবশ্বিে আমাদরে পণ্য সবার পছন্দরে। তাই ভোক্তারাও কনিছ।ে শ্যাম্পু ব্যবহার না করলওে চল।ে তারপরও বলিাসী এই পণ্য সবাই ব্যবহার করছনে।’

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর