1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : rubel :
  4. [email protected] : shaker :
  5. [email protected] : shamim :
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে মেহেরপুর আ. লীগ সভাপতির পদ থেকে সরানোর দাবি

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ৯৩ বার পড়া হয়েছে

ডেইলি খবর ডেস্ক: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনকে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির দলীয় পদ থেকে সরানোর দাবি তুলেছে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ নেতারা।৩০ আগষ্ট সোমবার বিকেলে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে দাবির বিষয়টি তুলে ধরেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুজিবনগর উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়া উদ্দিন আহমেদ বিশ্বাস।সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও মুজিবনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মোল্লা, মহাজনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান নান্নু, মোনাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জামাত আলী ও বাগোয়ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন প্রমুখ।সংবাদ সম্মেলনে জিয়া উদ্দিন আহমেদ বিশ্বাস উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিকে বাদ দিয়ে কর্মী সমাবেশ করায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমাম হোসেনের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ আনেন।জিয়া উদ্দিন আহমেদ বিশ্বাস বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া দল আওয়ামী লীগের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আমি সম্পৃক্ত। আমি ২২ বছর মুজিবনগর উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। ২০০২ সাল থেকে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছি। ২০১৯ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত পেয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন নিয়ে তা করছি।মুজিবনগরে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসূচি আমার নেতৃত্বেই পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু, গত ২৯ আগস্ট মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানার ব্যবহার করে কর্মী সমাবেশ করা হয়েছে। যে কর্মী সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দলীয়ভাবে আমাকে অবহিত করা হয়নি। দলের সভাপতিকে বাদ দিয়ে কীভাবে কর্মী সমাবেশ হয়, তা আমার বোধগম্য নয়। এটি একটি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের শামিল’, বলেন তিনি।সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন ও মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমাম হোসেন মিলুসহ গুটিকয়েক নেতাকর্মী নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছেন। দলকে কোন্দলের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন। এমন অবস্থায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ ছাড়া এ কোন্দল মেটানো সম্ভব নয়।মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রফিকুল ইসলামসহ অন্যান্য নেতারাও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ থেকে ফরহাদ হোসেন ও মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে আমাম হোসেন মিলুকে সরানোর দাবি জানিয়েছেন।সংবাদ সম্মেলন উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা যুবলীগ,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও চার ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।এ বিষয়ে জানতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের নম্বরে আট বার ফোন দিলেও তিনি তা ধরেননি। ক্ষুদেবার্তা পাঠালেও তিনি কোনো উত্তর দেননি।

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর