1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : shaker :
  4. [email protected] : shamim :
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ১০:১২ পূর্বাহ্ন

জাতীয় সংসদের শূন্য হওয়া ৪ আসনেই ইভিএমে ভোট

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৫ মে, ২০২১
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

সম্প্রতি শূন্য হওয়া জাতীয় সংসদের চারটি আসনেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করার পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ধীরে ধীরে ইভিএমের ব্যবহার বাড়ানোর সিদ্ধান্তের অংশ হিসেবেই এ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, সংসদ সদস্যের মৃত্যুর কারণে শূন্য হওয়া আসনে উপনির্বাচন হবে ঢাকা-১৪, কুমিল্লা-৫, সিলেট-৩ ও লক্ষ্মীপুর-২ আসনে। তবে কবে নাগাদ এসব আসনে নির্বাচন হবে তা এখনই নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। কেননা, করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার কারণে দেশের সব নির্বাচনের ওপর স্থাগিতাদেশ দিয়েছে কমিশন।

ঢাকা-১৪ আসন
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতা আসলামুল হকের ঢাকা-১৪ আসনটি শূন্য ঘোষণা করেছে সংসদ সচিবালয়। আসন শূন্য ঘোষণার গেজেট নির্বাচন কমিশনেও (ইসি) পাঠানো হয়েছে। তবে করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে শূন্য আসনটিতে নির্বাচন নিয়ে কোনো নথি খোলেনি সংস্থাটি।

সংসদ সচিবালয়ের ‘দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব’ মো. নূরুজ্জামান প্রকাশিত গেজেটে উল্লেখ করা হয়েছে- বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সদস্য মো. আসলামুল হক গত ৪ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করায় একাদশ জাতীয় সংসদের ১৮৭ ঢাকা-১৪ আসনটি ওই তারিখে শূন্য হয়েছে।

ঢাকা-১৪ আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য আসলামুল হক গত ৪ এপ্রিল রাজধানীর একটি অভিজাত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ২০০৮ সালের নবম সংসদ এবং ২০১৪ সালের দশম সংসদেও নির্বাচিত হয়েছিলেন। মৃত্যুকালীন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহসভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন আসলামুল হক। সংবিধান অনুযায়ী, এ আসনে জুলাইয়ের ২ তারিখের মধ্যে উপনির্বাচন হবে।

কুমিল্লা-৫ আসন
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য আবদুল মতিন খসরু মৃত্যুবরণ করায় তাঁর কুমিল্লা-৫ আসনটি শূন্য ঘোষণা করেছে সংসদ সচিবালয়।

জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সচিব ড. জাফর আহমেদ খান স্বাক্ষরিত গেজেট বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সদস্য আবদুল মতিন খসরু গত ১৪ এপ্রিল অপরাহ্নে মৃত্যুবরণ করায় একাদশ জাতীয় সংসদের কুমিল্লা-৫ আসনটি ওই তারিখে শূন্য হয়েছে।

সংবিধান অনুযায়ী, কোনো আসন শূন্য হলে তার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বিধান রয়েছে। এক্ষেত্রে ১২ জুলাইয়ের মধ্যে ভোট করতে হবে।

লক্ষ্মীপুর-২ আসন
কুয়েতের একটি আদলাতে ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়ার কারণে একাদশ সংসদের নির্বাচিত স্বতন্ত্র সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপুলের লক্ষ্মীপুর-২ আসটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। গত ২৮ জানুয়ারি সাজা হওয়ায় সেদিন থেকেই তার আসনটি শূন্য হয়। তার পরিপ্রেক্ষিতে এ আসনের ভোটের সময় দিয়েছিল ইসি। ১১ এপ্রিলের সেই ভোট করোনার কারণে স্থগিত রয়েছে। ‘দ্বৈব দুর্বিপাক’ কারণ দেখিয়ে সংবিধান নির্ধারিত ২৭ এপ্রিলের পরবর্তী ৯০ দিনে নির্বাচন করার জন্য সিদ্ধান্ত দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। এজন্য এ আসনে ভোট করা যাবে ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে।

সিলেট-৩
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ উস সামাদের সিলেট-৩ আসনের নির্বাচন সংবিধান নির্ধারিত ৯০ দিনের মধ্যে হচ্ছে না। এক্ষেত্রে তার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্য ভোটগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। অর্থাৎ ৮ জুনের মধ্যে ভোটটি না হয়ে ৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করবে সংস্থাটি।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপসচিব মো. আতিয়ার বলেন, জাতীয় সংসদের কোনো আসন শূন্য হলে, আসন শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। এক্ষেত্রে সিলেট-৩ আসনটি শূন্য হয় গত ১১ মার্চ। অর্থাৎ সংবিধান অনুযায়ী, ৮ জুনের মধ্যে ভোট করার বিধান রয়েছে। কিন্তু করোনা মহামারিকে ‘দ্বৈব দুর্বিপাক’ দেখিয়ে এ নির্বাচনের জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) আরো ৯০ দিন সময় নিলেন, যে এখতিয়ার সংবিধানেই দেওয়া আছে। এক্ষেত্রে ৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভোট করা যাবে।

গত ১১ মার্চ মাহমুদ সামাদ চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি নবম ও দশম সংসদেও এ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার যুগ্ম সচিব মো. ফরহাদ আহাম্মদ খান এবিষয়ে বলেন, ইভিএমে ভোট হতে পারে। লক্ষ্মীপুর-২ আসনে এই যন্ত্রে ভোট করার সিদ্ধান্ত তো আগেই নেওয়া ছিল। এখন বাকিগুলো কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত হবে।

তিনি বলেন, এখন প্রায় সব নির্বাচনেই ইভিএমের ব্যবহার বাড়ানো হচ্ছে। সেই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই সামনের নির্বাচনগুলোতেও ইভিএম বেশি হারে ব্যবহার করা হবে।

কমিশন সূত্র জানান, নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য চলতি বছর ৩৫ হাজার ইভিএম মেশিন কেনার পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমানে ইসির কাছে সোয়া লাখের মতো ভোটযন্ত্রটি আছে।

এ জাতীয় আরো খবর

বিজ্ঞাপন