1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : shaker :
  4. [email protected] : shamim :
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

ডানা ছাঁটা হচ্ছে গোতাবায়ার

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় বুধবার, ২২ জুন, ২০২২
  • ১১ বার পড়া হয়েছে

প্রেসিডেন্টর নির্বাহী ক্ষমতা কমিয়ে সংসদকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে সংবিধানের ২১তম সংশোধনী পাশ করেছে শ্রীলংকা।

সোমবার মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠকে পাশ করা এ সংশোধনীর ফলে দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের একচ্ছত্র ক্ষমতা অনেকটাই কমে আসবে।

বিলটি এখন সংসদে তোলার অপেক্ষায়। সংসদীয় ভোটাভুটিতে দুই-তৃতীয়াংশ ভোট পেলেই আইনে পরিণত হবে বিলটি। ২১তম সংশোধনীর মাধ্যমে মূলত সংবিধানের ২০-এ ধারাটি বাতিল করা হবে।

এই ধারাটিই মূলত প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসেকে সংসদের ওপর শক্তিশালী করে রেখেছিল। এ সংশোধনীর মাধ্যমে শ্রীলংকার প্রেসিডেন্টের ডানা ছাঁটা হচ্ছে বলেই মনে করছেন দেশটির রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। আলজাজিরা।

পর্যটন ও ভূমিমন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো এক টুইটে লেখেন, ২১তম সংশোধনী সোমবার মন্ত্রিসভায় পাশ হয়েছে । শিগগিরই তা পার্লামেন্ট পেশ করা হবে। সংশোধনীর অন্যতম লক্ষ্য দ্বৈত নাগরিকদের পাবলিক অফিসে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা থেকে বিরত রাখা।

তবে ক্ষমতাসীন শ্রীলংকা পোডুজানা পেরামুনা পার্টির একটি অংশ বর্তমান অর্থনৈতিক সংকটের সমাধান না করে নতুন সংশোধনী আনার বিরোধিতা করেছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে সংবিধানের ২১তম সংশোধনীর পক্ষে শক্ত ভূমিকা পালন করছেন।

তিনি বলেন, ঋণে জর্জরিত দেশ পরিচালনার ক্ষেত্রে এটি প্রেসিডেন্টের সীমাহীন ক্ষমতাকে রোধ করে পার্লামেন্টের ভূমিকা বাড়াতে সহায়ক হবে। নতুন সংশোধনী অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট পার্লামেন্টের কাছে দায়বদ্ধ থাকবেন।

২০২০ সালের আগস্টে সাধারণ নির্বাচনে ব্যাপক বিজয়ের পরে ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রেখেছিল শ্রীলংকার রাজনীতিতে শক্তিশালী রাজাপাকসে পরিবার।

সংবিধান সংশোধন করে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা পুনরুদ্ধার এবং পরিবারের ঘনিষ্ঠ সদস্যদের মূল পদে বসানোর ব্যবস্থা করা হয়। এজন্য সংবিধানের ১৯তম সংশোধনী বাতিল করে দেওয়া হয়।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে প্রেসিডেন্টের ওপর পার্লামেন্টকে শক্তিশালী করার জন্য ২০১৫ সালে ১৯তম সংশোধনী পাস করেছিলেন।

সেটি বাতিল করে সংবিধানের ২০তম ধারায় প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসেকে নিরবচ্ছিন্ন ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল।

মূলত গত ১২ মে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করার সময়ই রনিল বিক্রমাসিংহে গোতাবায়া রাজাপাকসের সঙ্গে এ সংস্কারের ব্যাপারে একটি চুক্তি করেন।

১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর এই প্রথম নজিরবিহীন অর্থনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে নিমজ্জিত হয়েছে শ্রীলংকা।

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর