1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : shaker :
  4. [email protected] : shamim :
বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:১২ অপরাহ্ন

দেশে যেন দুর্ভিক্ষ না হয়, ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছি: কৃষিমন্ত্রী

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১ মে, ২০২০
  • ৮০ বার পড়া হয়েছে

কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে পৃথিবীতে খাদ্য সংকট হহলে অনেক দেশে দুর্ভিক্ষ হবে। কাজেই এখন থেকে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। আগামী আউশ, পাট, গ্রীষ্মকালীন শাকসবজি এবং পরবর্তী আমন, রবি ফসল, ভূট্টা, শাকসবজি, আলুসহ সব কিছুর জন্যই আমরা ব্যাপক স¤প্রসারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছি।’

মন্ত্রী আরও বলেন, গত বছর সরকার মাত্র চার লাখ টন ধান কিনেছিল। এ বছর সিদ্ধান্ত হয়েছে, খাদ্য মন্ত্রণালয় আট লাখ টন খাদ্য সরবরাহ করবে। লটারির মাধ্যমে প্রান্তিক কৃষকের কাছ থেকে এই ধান কেনা হবে। তাতে করে বাজারের ওপর একটু প্রভাব পড়বে। প্রয়োজনে সরকার পরিমাণটা বাড়িয়ে আরও বেশি ধান কেনার চেষ্টা করবে। তিনি আশাবাদী, কৃষক এবার মোটামুটি ন্যায্যদাম পাবে।

মন্ত্রী শুক্রবার দুপুরে টাঙ্গাইলের মধুপুরে কৃষকদের মাঝে কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানের আয়োজনে ছিল উপজেলা কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অনুষ্ঠানে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব সরকার। যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে সব সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষকদের পাশে থাকেন। এ কারণেই সরকার কৃষিকে যান্ত্রিকীকরণের উদ্যোগ নিয়েছে। ধান কাটা, মাড়াই, শুকানো, রোপণসহ সব কিছুতেই যন্ত্র ব্যবহার করা হবে। প্রয়োজনীয় সব যন্ত্র বিদেশ থেকে আনা হচ্ছে। কৃষির সব ক্ষেত্রকে বাণিজ্যিকীকরণ ও লাভজনককরণ হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘যত যন্ত্র দরকার তা আমরা এখনো দিতে পারেনি। তাই তিন হাজার ২০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প দিয়েছি। আগামী বছর কৃষকদের বিপুলসংখ্যক কম্বাইন্ড হারভেস্টার দিতে পারব। উচ্চ ফলনশীল ধান, অর্থকরী ফসল, শাক-সবজি, ফলমূল এসব চাষে মানুষ বেশি লাভবান হয়। তাই সেগুলোর দিকে আমরা ঝুঁকেছি।’
মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফা জহুরা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান, টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান খন্দকার শফি উদ্দিন, মধুপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদ পারভেজ প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী শহীদ স্মৃতি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে চলমান লকডাউনের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষজনকে এসব সহায়তা দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর