1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : rubel :
  4. [email protected] : shaker :
  5. [email protected] : shamim :
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন

পর্যটন কেন্দ্রে বিদেশিদের জন্য ক্যাসিনোর সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ৭৭ বার পড়া হয়েছে

পর্যটন এলাকাগুলোতে বিদেশিদের জন্য ক্যাসিনোসহ বিনোদন উপযোগী সুযোগ-সুবিধা রেখে স্থাপনা নির্মাণের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। এতে আগামী ছয় মাসের মধ্যে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত এলাকায় ৫ হাজার পর্যটকের অবস্থানের উপযোগী স্থাপনা তৈরির জন্য কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্যও বলা হয়। কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। এর সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, মাহবুবউল আলম হানিফ, মির্জা আজম, মুহিবুর রহমান মানিক এবং নাহিদ ইজাহার খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, বৈঠকে কক্সবাজারের পর্যটন করপোরেশনের মোটেল শৈবাল, প্রবাল ও উপলকে একত্রিত করে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করতে বলা হয়েছে। এছাড়া কুয়াকাটার পর্যটন এলাকা সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত করে অগোছালো স্থাপনা নির্মাণ বন্ধের ওপর জোর দেওয়া হয়। একই সঙ্গে মাস্টার প্ল্যানের মাধ্যমে আধুনিক, আকর্ষণীয় এবং উন্নত সুযোগ-সুবিধা সংবলিত পর্যটন স্থাপনা তৈরির সুপারিশ করা হয়। পর্যটন কেন্দ্রগুলোকে বিদেশি পর্যটকদের জন্য ডেডিকেটেড ক্যাসিনোসহ তাদের বিনোদন উপযোগী ব্যবস্থা রেখে স্থাপনা নির্মাণের জন্য কমিটি সুপারিশ করে। বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের তথ্য অনুযায়ী ২০১৯ সালে বাংলাদেশে বিদেশি পর্যটকের সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ২৩ হাজার। এ সময় অভ্যন্তরীণ পর্যটকের সংখ্যা ছিল এক কোটি। ২০৪০ সাল নাগাদ পাঁচ লাখ আবাসন সুবিধার সুযোগ তৈরি, ১০ মিলিয়ন বিদেশি পর্যটক আগমন এবং আট বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্য সামনে রেখে ট্যুরিজম বোর্ড একটি মহাপরিকল্পনা তৈরি করছে বলে সভাকে জানানো হয়। এ অবস্থায় সংসদীয় কমিটি পর্যটন শিল্পে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ মিশনগুলোকে কাজে লাগানোর জন্য সুপারিশ করে। এছাড়া পর্যটন শিল্প বিকাশের স্বার্থে আন্তর্জাতিক পর্যটন সংস্থাসহ দেশি-বিদেশি ট্যুর অপারেটরদের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করে তাদের সহযোগিতা নেওয়ার জন্য কমিটি সুপারিশ করে।

কমিটির মতে, কক্সবাজারের তিনটি মোটেলে মোট সাড়ে ১৫ একর জমি। এগুলোর অবস্থানও একেবারেই সৈকতের কাছে। কিন্তু সেখানের মোটেল তিনটিতে সেই ধরনের সুযোগ-সুবিধা নেই। বেশিরভাগ রুম নন এসি। পর্যটকরা সেখানে থাকতে চান না। এজন্য তারা তিনটি মোটেলকে একত্রিত করে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা সংবলিত স্থাপনা তৈরির সুপারিশ করে। পাশাপাশি বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করার জন্য একটি এক্সক্লুসিভ জায়গা নির্ধারণ করতেও বলেছে সংসদীয় কমিটি।

জানতে চাইলে এ প্রসঙ্গে কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ বলেন, আমরাও চাই আমাদের দেশে বিদেশি পর্যটক আসুক। তারা তাদের মতো করে ওই নির্ধারিত এলাকায় ঢুকবে। সেখানে বাংলাদেশের কোনো লোক যেতে পারবে না। সারা বিশ্বে যে ধরনের সুযোগ দেওয়া হয় তাদের জন্য সেই সব সুযোগ সেখানে থাকবে। এতে করে বাংলাদেশকে মানুষ চিনতে পারবে। তিনি আরও বলেন, বৈঠক থেকে কমিটি যেসব সুপারিশ ও নির্দেশনা দিয়েছে তার অগ্রগতি নিয়ে আমরা ৬ মাস পরে আবারও বসব। ওই সময় আমরা দেখতে চাই, তারা আমাদের নির্দেশনার কতটুকু বাস্তবায়ন করতে পেরেছে।

তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশ এখন দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে উল্লেখ করে আ স ম ফিরোজ বলেন, আমাদের এখানে অনেক বিদেশি ক্রেতা আসেন। কিন্তু বিদেশিদের জন্য এখানে বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা নেই। সব মুসলিম দেশের দিকে তাকালে দেখা যাবে তারা বিদেশি পর্যটকদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রেখেছে।

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর