1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : shaker :
  4. [email protected] : shamim :
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫১ অপরাহ্ন

পিয়াসা-মৌদের সিন্ডিকেটে থাকা চক্রের কিছু সাংবাদিক ও চাঁদাবাজ গোয়েন্দা জালে

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৫৪ বার পড়া হয়েছে

ডেইলি খবর ডেস্ক: কথিত মডেল পিয়াসা-মৌদের সঙ্গে অন্তরঙ্গে থাকা চক্রের সিন্ডিকেটে কিছু সাংবাদিক ও চাঁদাবাজ গোয়েন্দা জালে। কথিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌয়ের সঙ্গের এসব চাদাবাজ চক্রের সদস্যরা যে কোনো সময় ধরা পড়তে পারেন। ইতোমধ্যে এক ছাত্রলীগ নেতাসহ দুজন গ্রেফতার হয়েছেন। এ দুজনের কাছ থেকে চক্রের আরও কয়েকজনের নাম পাওয়া গেছে। তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
এ নিয়ে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারের উপকমিশনার ফারুক হোসেন বলেন-গুলশান,বারিধারা,বনানীসহ কয়েকটি অভিজাত এলাকা থেকে বেশকিছু অভিযোগ এসেছে। বেশিরভাগই মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন। তাদের থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি চক্রের সদস্যদের বিষয়ে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। থানায় লিখিত অভিযোগ জমা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের গ্রেফতারে সর্বাÍক প্রচেষ্টা চালানো হবে।
রাজধানীর অভিজাত এলাকার বাসায় হাউজ পার্টির নামে অনৈতিক কর্মকান্ড,মাদক কারবার ও প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন পিয়াসা ও মৌসহ কয়েকজন মডেল অভিনেত্রী। তারা এখন কারাগারে। এ সুযোগে প্রতারণার ফাঁদ পেতে বসেছে কথিত মিডিয়ার‘সাংবাদিক চক্র’।একজন প্রভাবশালী সাংবাদিক নেতার আশ্রয়-প্রশ্রয়ে ওইসব কথিত সাংবাদিকরা অবাধে সিনেমা ও নাটকে কিংবা কথিত মডেলদের সাথে সখ্যতা বাড়িয়ে তোলার কাজ করা ওই সাংবাদিক নেতার সাথে-পাশে আনা-নেয়াসহ নানারকম মুখরোচক কথা সিনেমা পাড়ায় ঢালাপালা ছড়াচ্ছে।
এদিকে একজন ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে এ চক্রকে আইনের আওতায় এনেছে ডিএমপির ডিবি সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ইউনিটের সদস্যরা। চক্রের সদস্যরা হলেনÑপল্টন থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী আল জাহিদ ও তার সহযোগী সাইদ আব্দুস সানি ওরফে ডিজে সানি।
সূত্র জানায়, বিভিন্ন সূত্রে ছবি ও ভিডিও সংগ্রহ করেন জাহিদ। এরপর সহযোগীদের নিয়ে তা এডিট করে কথিত নিউজ পোর্টাল ও ইউটিউব চ্যানেলে ছেড়ে দেন। যাদের সঙ্গে মৌ, পিয়াসাসহ আলোচিত মডেলদের ছবি পাওয়া যায় তাদের হোয়াটস অ্যাপ বা অন্য সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কল করা হয়। দাবি করা হয় মোটা অঙ্কের টাকা। এ সিন্ডিকেটে কিছু কথিত সাংবাদিকও আছে।
গত ১৩ আগস্ট গুলশানের শাহরিয়ার মাকসুম নামে এক ব্যক্তির কাছে তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ। শাহরিয়ারের স্ত্রী তাজরুনা হোসেন নেভী ১৭ আগস্ট তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় জাহিদ ও সানির নাম উল্লেখ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। ওইদিনই তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরদিন আদালতে হাজির করে তাদের রিমান্ডে নেওয়া হয়। চাঁদাবাজ চক্রের সদস্যদের বিষয়ে তারা অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়-১৩ আগস্ট রাত সাড়ে ১১টার দিকে নেভী ও তার স্বামী শাহরিয়ার তেজগাঁওয়ের লাভ রোডে অবস্থান করছিলেন। এ সময় হোয়াটসঅ্যাপে শাহরিয়ারকে ফোন দিয়ে জানানো হয়, জাহিদের কাছে মডেল পিয়াসা ও মৌর সঙ্গে তার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবিসহ কিছু ডকুমেন্ট আছে। তিন লাখ টাকা চাঁদা না দিলে সেগুলো সামাজিক মাধ্যমসহ বিভিন্ন নিউজ মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হবে। ঘটনাটি প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার কিছু সাংবাদিক অবগত আছেন। চাহিদামতো টাকা না দিলে মিডিয়ায় প্রচার করে ভাইরাল করে দেওয়া হবে। এজাহারে দুটি কথিত নিউজ পোর্টাল এবং একটি ইউটিউবের লিংক দেওয়া হয়। এসব কথিত নিউজ ও ভিডিওতে শাহরিয়ারের সঙ্গে পিয়াসা ও মৌর ছবি এডিট করে প্রকাশ করা হয়।
ডিবি সূত্র আরও জানায়,জাহিদ ও সানির সিন্ডিকেটে আরও চার-পাঁচজন সদস্য রয়েছে।সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন মিথ্যা,বিভ্রান্তিকর,মানহানিকর তথ্য-উপাত্ত প্রচার ও প্রকাশ করে তারা। অ্যাপে গোপন যোগাযোগে তারা পিয়াসা,মৌসহ কয়েকজন মডেলের সঙ্গে ছবি নিয়ে এডিট করে ভিডিও বানায়।
এ চক্রে ভুঁইফোড় অনলাইন পত্রিকার কথিত সাংবাদিকও আছে। পিয়াসা,মৌ ও চিত্রনায়িকা পরীমনি গ্রেফতারের পর তারা এমন ছবি ও চটকদার সংবাদ সংগ্রহ করে বিভিন্নজনকে পাঠায়। গুলশান ও বনানীর প্রতষ্ঠিত কিছু ব্যবসায়ী এবং প্রভাবশালী ব্যক্তিকেও তারা ফাঁদে ফেলে। গত ১ আগস্ট রাতে বারিধারা ও মোহাম্মদপুরে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্যসহ কথিত মডেল পিয়াসা ও মৌকে গ্রেফতার করে ডিবি। এরপর তাদের বাসায় হাউজ পার্টির নামে অনৈতিক কর্মকান্ড ও মাদকের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগ আলোচনায় উঠে আসে।
গত ৯ আগস্ট ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, গ্রেফতার মডেল ও অভিনেত্রীদের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে এমন কথা বলে একটি চক্র চাঁদাবাজিতে নেমেছে। চাঁদা না দিলে গণমাধ্যমে তার নাম প্রকাশ করার হুমকি দেওয়া হয়েছে।সুত্র-যুগান্তর

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর