1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : Daily Khabor : Daily Khabor
  3. [email protected] : rubel :
  4. [email protected] : shaker :
  5. [email protected] : shamim :
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৪১ পূর্বাহ্ন

প্রখ্যাত আইনজীবী সিরাজুল হকের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

ডেইলি খবর নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ৮৯ বার পড়া হয়েছে

ডেইলি খবর ডেস্ক: বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ,বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা হত্যা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌসুলী অ্যাডভোকেট সিরাজুল হকের ১৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ২৮ অক্টোবর।এ উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা এবং আখাউড়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে দোয়া, মিলাদ মাহফিল ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে।প্রখ্যাত আইনজীবী সিরাজুল হক ১৯২৫ সালের ১ আগস্ট তৎকালীন কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার পানিয়ারূপ গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। ২০০২ সালের ২৮ অক্টোবর পরলোক গমন করেন।সিরাজুল হক ১৯৭০ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে কসবা-বুড়িচং নিয়ে গঠিত তৎকালীন কুমিল্লা-৪ আসন থেকে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য এবং ১৯৭৩ সালের স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কসবা-আখাউড়া নিয়ে গঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন ।জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর সিরাজুল হক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বঙ্গভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে খুনী মোশতাকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন। খুনী মোশতাক যে বৈঠক আহবান করেছিলেন সেখানে অন্যান্যদের সঙ্গে যোগ দেন সিরাজুল হকও। তবে তিনি সেখানে হাজির হন ভিন্ন রূপে। মঞ্চে যখন সিরাজুল হককে ডাকা হয়, তখন তিনি ক্রুদ্ধ কণ্ঠে বললেন “সরি মি. মোশতাক,আমি আপনাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে সম্বোধন করতে পারলামনা। আপনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে অবৈধ।“ মোশতাকও ঔদ্ধত্য দেখালে সিরাজুল হকের হুংকারে খুনী মোশতাকের সেদিনের বৈঠক ভেস্তে গিয়েছিল।বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ইনেডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে বিচারের পথ রুদ্ধ করে রাখা হয়েছিল। দীর্ঘ ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে, ষড়যন্ত্রের নাগপাশ ভেদ করে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করা হয়। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবী হিসেবে হাল ধরেন অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক। দীর্ঘ আইনী লড়াই করে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচার সম্পন্ন করেছিলেন। ফাঁসির রজ্জুতে ঝুলিয়েছেন খুনীদের।বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার পাশাপাশি জাতীয় চার নেতা হত্যা মামলারও রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌসুলি ছিলেন সিরাজুল হক। তাঁর মৃত্যুর পর এই মামলার হাল ধরেন তাঁর পুত্র বর্তমান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপি। মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা সিরাজুল হকের প্রতি শ্রদ্ধা।

 

বিজ্ঞাপন

এ জাতীয় আরো খবর